রাত ১২:০২ | বৃহস্পতিবার | ১৬ই জানুয়ারি, ২০১৯ ইং | ৪ঠা মাঘ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

মধ্যযুগে নারীরা যেভাবে প্রাকৃতিক উপায়ে রাজাদের আকর্ষিত করত

ইতিহাস থেকে জানা যায় মধ্যযুগীয় সময়ে রানীরা অত্যন্ত সুন্দরী এবং তাদের শরীর সুগঠিত ছিল। তারা বয়স বাড়া সত্ত্বেও তাদের যৌবন কম হতো না। তাদের অভাবনীয় সুন্দর ত্বক আর দীঘল কাল লম্বা চুল ছিল। তারা সব প্রাকৃতিক উপকরণ ব্যবহার করতো যা ছিল সব সমস্যার উত্তর। এই কারণে রানীদের পুরু দীঘল কাল লম্বা চুল ছিল। আপনিও যদি অমন সুন্দর হতে চান তাহলে এই সহজ উপায়গুলো ব্যবহার করতে পারেন।

রাজারা রানীদের দ্বারা মুগ্ধ হতেন
রানীদের সৌন্দর্যের সম্পর্কে কথা বলা হলে বলা হয় যে চিতোরগড়ের রানী পদ্মাবতি এত সুন্দরী ছিলেন যে, একজন মুসলিম শাসক আলাউদ্দিন খিলজি চিতোড়গড়কে আক্রমণ করেছিলেন শুধু তাকে পাওয়ার জন্য।

তাদের সৌন্দর্যের রহস্য
ধারণা করা হয় যে রানীর সুশৃঙ্খল শারীরিক গঠন এবং সুন্দরী রূপ রাজাদের আকর্ষণ করতো। এই যত্ন নেওয়ার জন্য রানীরা বৈদিক শাস্ত্র প্রদত্ত ঔষধ গ্রহণ করতেন।

শরীর সুগঠিত রাখার উপায়
রাজ বৈদ্যরা রানীদের এই ওষুধ গুলো ব্যবহার করতে বলতেন যাতে তাদের যৌবন বজায় থাকে। এগুলি সাধারণ মানুষ যেমন আপনি আমিও এই উপায় ব্যবহার করতে পারে দৈনন্দিন জীবনে।

গোলাপ জল দিয়ে স্নান
রানীরা স্নানের জলে গোলাপের পাপড়ি ব্যবহার করতেন, যা তাদের চামড়ার উপর প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা আনতে সাহায্য করত, যখনই রাজা একজন রানীকে স্পর্শ করতেন তখন তার মনে হত যে কোন ভেলভেটর মতন নরম কিছু স্পর্শ করছেন। আর এটাই রাজাদের পাগোল করে তুলতো।

মদ দিয়ে বানানো হত ফেস প্যাক
মদের (বিয়ার) মধ্যে দুধ, ডিমের সাদা অংশ এবং লেবুর রস মেশানো প্যাক ব্যবহার হতো মৃত চামড়া এবং কঠোরতা অপসারণের জন্য যা চামরা নরম করে।

আভাকাডো মাস্ক
শরীরের দাগ সরাবার জন্য এবং মুখ থেকে কলুষতা সরানোর জন্য আভাকাডো ফেসপ্যাক ব্যবহার করা হতো। এ ছাড়াও, আভাকাডো বাঁকানো শরীর পেতে সাহায্য করতো।

আখরোট বয়সের ছাপ দূর করে
আপনি জানেন কি যে, তারা দৈনিক আখরোট এবং গাজর ব্যবহার করতো তাদের শারীরিক অঙ্গগুলি ভালো রাখার জন্য, বিশেষ করে এটি শরীরকে সুস্থ ও বক্র শরীর গঠনে সাহায্য করে। বিশ্ব স্বাস্থ্য ওয়েবসাইট অনুযায়ী তাই তখন কেউ তাদের বয়স নির্ধারণ করতে পারত না।

লম্বা মোটা চুল
সুন্দর এবং স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল সবসময় সৌন্দর্যের আসল প্রতীক। প্রাচীনকালে আমাদের রানীরা তাদের চুলের যত্ন নিতে মধু এবং জলপাই তেল ব্যবহার করতেন।

গোলাপের সুবাস
রানীরা তাদের ত্বকের শুষ্কতা অপসারণের জন্য গোলাপের সুগন্ধি ব্যবহার করত। এটা নিশ্চিত যে, এর জন্য তারা সারা দিন স্বর্গীয় গন্ধ উপভোগ করত।

গোসলের জন্য গাধার দুধ
সেই সময়ে রানীরা মধু এবং জলপাই তেল গাধার দুধের সাথে মিশ্রিত করতেন। দুধে এন্টি-ফিডিং প্রোডাকশন থাকে যা বার্ধক্য বৃদ্ধির কারণকে হ্রাস পায়।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» গোপীনাথপুর ফুটবল একাদশকে হারালো খুলনা মোল্যা খোকন স্মৃতি সংঘ

» কাশিয়ানীতে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য শাহিন ডাকাত গ্রেফতার

» মঈনুল হোসেন এর বিচারের দাবীতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিক্ষোভ সমাবেশ

» ৫ নং রাজনগর ইউনিয়ন ১-০ গোলে হারালো পেড়িখালি ইউনিয়নকে

» আলফাডাঙ্গায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে বৃদ্ধ মাতা সহ ২ সহোদর রক্তাক্ত জখম

» একটা মানবিক সাহায্যের প্রয়োজন

» স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ” তারিক সাঈদ ” এর জন্মদিন

» গাছ লাগান, পরিবেশ বাঁচান’ : আশিক খান

» পদ্মায় লঞ্চঘাট ধস: আল আমিনকে পেতে পরিবারের আকুতি

» Teams

» TC team

» আলফাডাঙ্গায় জুয়া খেলার প্রতিবাদ করায় ইউপি সদস্যকে হত্যার হুমকি

» রুর‌্যাল জার্নালিষ্ট ফাউন্ডেশন (আরজেএফ)’র আলফাডাঙ্গা শাখার দ্বিবার্ষিক কমিটি গঠন

» সমাহার সফট চালু করলো করপোরেট বাল্ক এসএমএস

» আরজেএফ কেন্দ্রীয় কমিটিতে আলফাডাঙ্গার কামরুল ইসলাম নির্বাচিত

Archive Calendar

জুন ২০১৮
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« মে   জুলাই »
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০  

সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463,09602333111,01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।

রাত ১২:০২, ,

মধ্যযুগে নারীরা যেভাবে প্রাকৃতিক উপায়ে রাজাদের আকর্ষিত করত

ইতিহাস থেকে জানা যায় মধ্যযুগীয় সময়ে রানীরা অত্যন্ত সুন্দরী এবং তাদের শরীর সুগঠিত ছিল। তারা বয়স বাড়া সত্ত্বেও তাদের যৌবন কম হতো না। তাদের অভাবনীয় সুন্দর ত্বক আর দীঘল কাল লম্বা চুল ছিল। তারা সব প্রাকৃতিক উপকরণ ব্যবহার করতো যা ছিল সব সমস্যার উত্তর। এই কারণে রানীদের পুরু দীঘল কাল লম্বা চুল ছিল। আপনিও যদি অমন সুন্দর হতে চান তাহলে এই সহজ উপায়গুলো ব্যবহার করতে পারেন।

রাজারা রানীদের দ্বারা মুগ্ধ হতেন
রানীদের সৌন্দর্যের সম্পর্কে কথা বলা হলে বলা হয় যে চিতোরগড়ের রানী পদ্মাবতি এত সুন্দরী ছিলেন যে, একজন মুসলিম শাসক আলাউদ্দিন খিলজি চিতোড়গড়কে আক্রমণ করেছিলেন শুধু তাকে পাওয়ার জন্য।

তাদের সৌন্দর্যের রহস্য
ধারণা করা হয় যে রানীর সুশৃঙ্খল শারীরিক গঠন এবং সুন্দরী রূপ রাজাদের আকর্ষণ করতো। এই যত্ন নেওয়ার জন্য রানীরা বৈদিক শাস্ত্র প্রদত্ত ঔষধ গ্রহণ করতেন।

শরীর সুগঠিত রাখার উপায়
রাজ বৈদ্যরা রানীদের এই ওষুধ গুলো ব্যবহার করতে বলতেন যাতে তাদের যৌবন বজায় থাকে। এগুলি সাধারণ মানুষ যেমন আপনি আমিও এই উপায় ব্যবহার করতে পারে দৈনন্দিন জীবনে।

গোলাপ জল দিয়ে স্নান
রানীরা স্নানের জলে গোলাপের পাপড়ি ব্যবহার করতেন, যা তাদের চামড়ার উপর প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা আনতে সাহায্য করত, যখনই রাজা একজন রানীকে স্পর্শ করতেন তখন তার মনে হত যে কোন ভেলভেটর মতন নরম কিছু স্পর্শ করছেন। আর এটাই রাজাদের পাগোল করে তুলতো।

মদ দিয়ে বানানো হত ফেস প্যাক
মদের (বিয়ার) মধ্যে দুধ, ডিমের সাদা অংশ এবং লেবুর রস মেশানো প্যাক ব্যবহার হতো মৃত চামড়া এবং কঠোরতা অপসারণের জন্য যা চামরা নরম করে।

আভাকাডো মাস্ক
শরীরের দাগ সরাবার জন্য এবং মুখ থেকে কলুষতা সরানোর জন্য আভাকাডো ফেসপ্যাক ব্যবহার করা হতো। এ ছাড়াও, আভাকাডো বাঁকানো শরীর পেতে সাহায্য করতো।

আখরোট বয়সের ছাপ দূর করে
আপনি জানেন কি যে, তারা দৈনিক আখরোট এবং গাজর ব্যবহার করতো তাদের শারীরিক অঙ্গগুলি ভালো রাখার জন্য, বিশেষ করে এটি শরীরকে সুস্থ ও বক্র শরীর গঠনে সাহায্য করে। বিশ্ব স্বাস্থ্য ওয়েবসাইট অনুযায়ী তাই তখন কেউ তাদের বয়স নির্ধারণ করতে পারত না।

লম্বা মোটা চুল
সুন্দর এবং স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল সবসময় সৌন্দর্যের আসল প্রতীক। প্রাচীনকালে আমাদের রানীরা তাদের চুলের যত্ন নিতে মধু এবং জলপাই তেল ব্যবহার করতেন।

গোলাপের সুবাস
রানীরা তাদের ত্বকের শুষ্কতা অপসারণের জন্য গোলাপের সুগন্ধি ব্যবহার করত। এটা নিশ্চিত যে, এর জন্য তারা সারা দিন স্বর্গীয় গন্ধ উপভোগ করত।

গোসলের জন্য গাধার দুধ
সেই সময়ে রানীরা মধু এবং জলপাই তেল গাধার দুধের সাথে মিশ্রিত করতেন। দুধে এন্টি-ফিডিং প্রোডাকশন থাকে যা বার্ধক্য বৃদ্ধির কারণকে হ্রাস পায়।

Comments

comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463,09602333111,01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।