দুপুর ১:৩৪ | শনিবার | ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং | ৭ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

দুই বোনের ইয়াবা সম্রাজ্ঞী বিলাসবহুল জীবনের গল্প!

নিজেদের আলিশান ফ্ল্যাটে ইয়াবার গোডাউন গড়ে তুলেছিল আসমা আহমেদ ডালিয়া (৩৭) ও তার বোন ফারজানা আক্তার স্বপ্না (৩০)। সেখান থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা, সাভার ও রাজশাহীতে পাঠানো হতো মরণনেশা ইয়াবা। খুচরা নয়, তারা পাইকারি বিক্রি করত।

ওই দু’জনের মা মনোয়ারাসহ পরিবারের সব সদস্যই ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। ডালিয়া, স্বপ্না ও মনোয়ারা মাদকজগতে ‘ইয়াবা সম্রাজ্ঞী’ হিসেবেই পরিচিত। মাত্র কয়েক বছর এই অবৈধ ব্যবসা করে তারা কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন।

রাজধানীর কলাবাগান ও এলিফ্যান্ট রোডে রয়েছে দুটি ফ্ল্যাট, যার আনুমানিক মূল্য ছয় কোটি টাকা। এ ছাড়া ইয়াবা বহনের জন্য রয়েছে একটি বিলাসবহুল গাড়ি। কোটি টাকা ব্যাংক লেনদেনের তথ্যও মিলেছে।

মা, ফুফু ও স্বামীসহ গ্রেপ্তারের পর দুই বোনের অঢেল সম্পত্তির বিষয়টি সামনে উঠে এসেছে। তাদের সিন্ডিকেটের আরও অন্তত ১০ সদস্যকে খুঁজছেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

গত বছরের ৯ জুলাই ৫০ হাজার পিস ইয়াবাসহ মনোয়ারা, ডালিয়া ও তার স্বামী রবিউল ইসলাম, স্বপ্না ও তার স্বামী শামীম আহমেদ এবং ফুফু মাহমুদা রানীকে গ্রেপ্তার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি) ঢাকা মেট্রো উপ-অঞ্চল। এলিফ্যান্ট রোড, পশ্চিম রাজাবাজার ও কলাবাগান এলাকার বাসা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এর পর এবছরের ২৫ এপ্রিল তাদের ভাই সৈয়দ মাহবুবুর রহমানসহ (৩০) তিন জনকে ২৮ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি) গোয়েন্দারা। অপর দুজন হলো- মাহবুবের স্ত্রী সৈয়দা সুমাইয়া ইসলাম নয়ন (২৫) এবং কারবারী জহিরুল ইসলাম বাবু (২৮)।

এদিকে ডালিয়া-স্বপ্না কীভাবে ইয়াবা ব্যবসায় নেমেছে, কোথা থেকে ইয়াবা আসে, কোথায় কাদের কাছে বিক্রি করে সেসব বিষয়ে তারা চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, স্বপ্নার স্বামী শামীম আহমেদের বাড়ি যশোরের বেনাপোলের কাগজপুকুর গ্রামে। ১৯৯৮ সালে শামীম হেরোইন ব্যবসা শুরু করে। থাকত ঢাকার বিভিন্ন এলাকায়। হেরোইন ব্যবসা মন্দা হওয়ায় ২০০৬ সালে ইয়াবার ব্যবসা শুরু করে। ওই সময় সে কলাবাগানের ভূতের গলিতে থাকত।

একই এলাকায় বোন ডালিয়াকে নিয়ে থাকত স্বপ্না। ভূতের গলিতে শামীম-স্বপ্নার পরিচয় ও প্রেম। এরপর তাদের বিয়ে হয়। স্বপ্না সুন্দরী হওয়ায় ২০০৮ সালের দিকে তাকে ইয়াবা বহনের কাজে লাগায় শামীম। ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় স্বপ্না বিক্রেতাদের কাছে ইয়াবা পৌঁছে দিত। বিয়ের কয়েক মাসের মাথায় স্বপ্না বিত্তশালী হয়ে ওঠায় বড় বোন ডালিয়াও একই পথে পা বাড়ায়।

ডালিয়ার স্বামী রবিউল ও মা মনোয়ারাও যোগ দেয় তাদের সঙ্গে। দুই বোন, তাদের স্বামী ও মা মিলে গড়ে তোলে ইয়াবার সিন্ডিকেট। সিন্ডিকেটে আরও কয়েকজন সদস্য রয়েছে। ইয়াবা ব্যবসা করে ডালিয়া এলিফ্যান্ট রোডের ১৭৩ নম্বর ভবনে ১৬৬০ স্কয়ার ফিটের একটি ফ্ল্যাট এবং স্বপ্না কলাবাগানে সেল হাসনা হেনায় ১৮০০ স্কয়ার ফিটের একটি ফ্ল্যাট কিনে বসবাস শুরু করে।

এ দুটি ফ্ল্যাটে তারা ইয়াবার গোডাউন গড়ে তোলে। পশ্চিম রাজাবাজারের একটি ভাড়া ফ্ল্যাটে থাকত মনোয়ারা। দুই বোন ইয়াবার টাকায় মালয়েশিয়ায় সেকেন্ড হোম গড়েছে বলে তথ্য পেয়েছেন তদন্তসংশ্লিষ্টরা। ডালিয়ার বড় ছেলে মালয়েশিয়ায় পড়ালেখা করছে।

সূত্র আরও জানায়, চট্টগ্রামের দুই ইয়াবা ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ডালিয়া ও স্বপ্না প্রতি মাসে অন্তত দেড় লাখ পিস ইয়াবা ঢাকায় আনে। এরপর তারা মিরপুর, বাড্ডা, যাত্রাবাড়ী, কারওয়ান বাজারসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা, সাভার ও রাজশাহীতে তা সরবরাহ করত। একজনের কাছে ৫০০ পিসের কম ইয়াবা বিক্রি করত না। গাড়িতে করে ইয়াবা পৌঁছে দেওয়া হতো।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ৫ নং রাজনগর ইউনিয়ন ১-০ গোলে হারালো পেড়িখালি ইউনিয়নকে

» আলফাডাঙ্গায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে বৃদ্ধ মাতা সহ ২ সহোদর রক্তাক্ত জখম

» একটা মানবিক সাহায্যের প্রয়োজন

» স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ” তারিক সাঈদ ” এর জন্মদিন

» গাছ লাগান, পরিবেশ বাঁচান’ : আশিক খান

» পদ্মায় লঞ্চঘাট ধস: আল আমিনকে পেতে পরিবারের আকুতি

» Teams

» TC team

» আলফাডাঙ্গায় জুয়া খেলার প্রতিবাদ করায় ইউপি সদস্যকে হত্যার হুমকি

» রুর‌্যাল জার্নালিষ্ট ফাউন্ডেশন (আরজেএফ)’র আলফাডাঙ্গা শাখার দ্বিবার্ষিক কমিটি গঠন

» সমাহার সফট চালু করলো করপোরেট বাল্ক এসএমএস

» আরজেএফ কেন্দ্রীয় কমিটিতে আলফাডাঙ্গার কামরুল ইসলাম নির্বাচিত

» “মধুমতি পাড়ের লেখিয়ে গ্রুপ”

» Test

» জেনে নিন টনসিলের ব্যথা দূর করার সহজ সমাধান !!

Archive Calendar

মে ২০১৮
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
« এপ্রিল   জুন »
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  

সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463,09602333111,01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।

দুপুর ১:৩৪, ,

দুই বোনের ইয়াবা সম্রাজ্ঞী বিলাসবহুল জীবনের গল্প!

নিজেদের আলিশান ফ্ল্যাটে ইয়াবার গোডাউন গড়ে তুলেছিল আসমা আহমেদ ডালিয়া (৩৭) ও তার বোন ফারজানা আক্তার স্বপ্না (৩০)। সেখান থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা, সাভার ও রাজশাহীতে পাঠানো হতো মরণনেশা ইয়াবা। খুচরা নয়, তারা পাইকারি বিক্রি করত।

ওই দু’জনের মা মনোয়ারাসহ পরিবারের সব সদস্যই ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। ডালিয়া, স্বপ্না ও মনোয়ারা মাদকজগতে ‘ইয়াবা সম্রাজ্ঞী’ হিসেবেই পরিচিত। মাত্র কয়েক বছর এই অবৈধ ব্যবসা করে তারা কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন।

রাজধানীর কলাবাগান ও এলিফ্যান্ট রোডে রয়েছে দুটি ফ্ল্যাট, যার আনুমানিক মূল্য ছয় কোটি টাকা। এ ছাড়া ইয়াবা বহনের জন্য রয়েছে একটি বিলাসবহুল গাড়ি। কোটি টাকা ব্যাংক লেনদেনের তথ্যও মিলেছে।

মা, ফুফু ও স্বামীসহ গ্রেপ্তারের পর দুই বোনের অঢেল সম্পত্তির বিষয়টি সামনে উঠে এসেছে। তাদের সিন্ডিকেটের আরও অন্তত ১০ সদস্যকে খুঁজছেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

গত বছরের ৯ জুলাই ৫০ হাজার পিস ইয়াবাসহ মনোয়ারা, ডালিয়া ও তার স্বামী রবিউল ইসলাম, স্বপ্না ও তার স্বামী শামীম আহমেদ এবং ফুফু মাহমুদা রানীকে গ্রেপ্তার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি) ঢাকা মেট্রো উপ-অঞ্চল। এলিফ্যান্ট রোড, পশ্চিম রাজাবাজার ও কলাবাগান এলাকার বাসা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এর পর এবছরের ২৫ এপ্রিল তাদের ভাই সৈয়দ মাহবুবুর রহমানসহ (৩০) তিন জনকে ২৮ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি) গোয়েন্দারা। অপর দুজন হলো- মাহবুবের স্ত্রী সৈয়দা সুমাইয়া ইসলাম নয়ন (২৫) এবং কারবারী জহিরুল ইসলাম বাবু (২৮)।

এদিকে ডালিয়া-স্বপ্না কীভাবে ইয়াবা ব্যবসায় নেমেছে, কোথা থেকে ইয়াবা আসে, কোথায় কাদের কাছে বিক্রি করে সেসব বিষয়ে তারা চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, স্বপ্নার স্বামী শামীম আহমেদের বাড়ি যশোরের বেনাপোলের কাগজপুকুর গ্রামে। ১৯৯৮ সালে শামীম হেরোইন ব্যবসা শুরু করে। থাকত ঢাকার বিভিন্ন এলাকায়। হেরোইন ব্যবসা মন্দা হওয়ায় ২০০৬ সালে ইয়াবার ব্যবসা শুরু করে। ওই সময় সে কলাবাগানের ভূতের গলিতে থাকত।

একই এলাকায় বোন ডালিয়াকে নিয়ে থাকত স্বপ্না। ভূতের গলিতে শামীম-স্বপ্নার পরিচয় ও প্রেম। এরপর তাদের বিয়ে হয়। স্বপ্না সুন্দরী হওয়ায় ২০০৮ সালের দিকে তাকে ইয়াবা বহনের কাজে লাগায় শামীম। ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় স্বপ্না বিক্রেতাদের কাছে ইয়াবা পৌঁছে দিত। বিয়ের কয়েক মাসের মাথায় স্বপ্না বিত্তশালী হয়ে ওঠায় বড় বোন ডালিয়াও একই পথে পা বাড়ায়।

ডালিয়ার স্বামী রবিউল ও মা মনোয়ারাও যোগ দেয় তাদের সঙ্গে। দুই বোন, তাদের স্বামী ও মা মিলে গড়ে তোলে ইয়াবার সিন্ডিকেট। সিন্ডিকেটে আরও কয়েকজন সদস্য রয়েছে। ইয়াবা ব্যবসা করে ডালিয়া এলিফ্যান্ট রোডের ১৭৩ নম্বর ভবনে ১৬৬০ স্কয়ার ফিটের একটি ফ্ল্যাট এবং স্বপ্না কলাবাগানে সেল হাসনা হেনায় ১৮০০ স্কয়ার ফিটের একটি ফ্ল্যাট কিনে বসবাস শুরু করে।

এ দুটি ফ্ল্যাটে তারা ইয়াবার গোডাউন গড়ে তোলে। পশ্চিম রাজাবাজারের একটি ভাড়া ফ্ল্যাটে থাকত মনোয়ারা। দুই বোন ইয়াবার টাকায় মালয়েশিয়ায় সেকেন্ড হোম গড়েছে বলে তথ্য পেয়েছেন তদন্তসংশ্লিষ্টরা। ডালিয়ার বড় ছেলে মালয়েশিয়ায় পড়ালেখা করছে।

সূত্র আরও জানায়, চট্টগ্রামের দুই ইয়াবা ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ডালিয়া ও স্বপ্না প্রতি মাসে অন্তত দেড় লাখ পিস ইয়াবা ঢাকায় আনে। এরপর তারা মিরপুর, বাড্ডা, যাত্রাবাড়ী, কারওয়ান বাজারসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা, সাভার ও রাজশাহীতে তা সরবরাহ করত। একজনের কাছে ৫০০ পিসের কম ইয়াবা বিক্রি করত না। গাড়িতে করে ইয়াবা পৌঁছে দেওয়া হতো।

Comments

comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463,09602333111,01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।