সন্ধ্যা ৭:৪৮ | রবিবার | ২৭শে মে, ২০১৮ ইং | ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

রিহার্সেলের কথা বলে ছাত্রীকে যৌন হয়রানি!

যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের ৪৫তম ব্যাচের এক ছাত্রী। যার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ আনা হয়েছে, তিনিও একই বিভাগের ৪৩তম ব্যাচের ছাত্র এবং আল বেরুণী হলের বাসিন্দা।

আজ বৃহস্পতিবার ওই ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ছাত্র।

উপাচার্যের সচিব আমজাদ হোসেন রাতে এনটিভি অনলাইনকে জানান, ‘এক ছাত্রী যৌন হয়রানির একটি অভিযোগ দিয়েছেন। কিন্তু অফিস সময় শেষ হয়ে যাওয়ায় সেটি উপাচার্যের কাছে হস্তান্তর করা হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরবর্তী কার্যদিবসে এটি উপাচার্যের কাছে হস্তান্তর করা হবে।’

এ ব্যাপারে নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক এ কে এম ইউসুফ হাসান বলেন, ‘বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত হয়েছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহা বলেন, ‘শিক্ষার্থী অভিযোগ নিয়ে এসেছিল। তবে যৌন নিপীড়নের বিষয় হওয়ায় যৌন নিপীড়ন সেল ও উপাচার্যের কাছে অভিযোগ দিতে বলেছি।’

অভিযোগপত্রে ওই ছাত্রী উল্লেখ করেন, ‘গত বছরের ১৫ জুলাই রিহার্সেলের কথা বলে ওই ছাত্র আমাকে জহির রায়হান মিলনায়তনের ল্যাব কক্ষে ডেকে নিয়ে যান এবং প্রপস (নাটকের সাজ সরঞ্জাম) গোছানো ও ল্যাব পরিষ্কারের কথা বলেন। আমি গোছানোর কাজ শুরু করার কিছু সময় পরে তিনি ল্যাবের কক্ষের দরজা বন্ধ করে দেন এবং আমার ওপর যৌন নিপীড়ন করেন। এ সময় তিনি আমার হাত মুচড়ে দেন এবং শাসিয়ে আর কারো সঙ্গে এই ঘটনা আলোচনা না করতে বলেন।’

‘একপর্যায়ে আমি তাঁকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে ল্যাব থেকে বের হয়ে বাসায় চলে যাই। এরপর তিনি অনেকবার আমাকে মানসিকভাবে হেনস্তা করেন এবং ভয় দেখান। ভয়ে আমি কাউকে কিছু বলিনি। এ কারণে আমি দীর্ঘদিন বিভাগে আসা বন্ধ রাখি। এ সময়ে তিনি আমার নামে বিভাগের বন্ধুদের কাছে কুৎসা রটাতে থাকেন।’

অভিযোগে আরো বলা হয়, ‘ওই ঘটনার পর গত বছরের ১৪ নভেম্বর আবার তিনি আমাকে ফোন দিয়ে হলের সামনে আসতে বলেন। আমি তাঁর সঙ্গে দেখা করব না বললে তিনি আমাকে হুমকি দেন। ভয়ে আমি হলের সামনে গেলে ওই সময় বিদ্যুৎ চলে যায়। এ সুযোগে তিনি আমাকে টানতে টানতে বৃন্দাবনের দিকে নিয়ে যান এবং আমার সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু করেন।’

সর্বশেষ গত ১২ মার্চ জাবির টিএসসিতে রিহার্সেল চলার সময়েও ওই ছাত্র অশালীন কথা বলেন বলে অভিযোগ করেন ছাত্রী। তিনি বলেন, ‘টিএসসির ঘটনার পর আমি বিষয়গুলো বিভাগের বন্ধুদের ও বড় ভাই-আপুদের জানাই। তাঁরা বিষয়টির সমাধানের জন্য গত ১৫ মার্চ বিভাগের সব ব্যাচ মিলে বসেন। ঘটনাস্থলে বসেও ওই ছাত্র আমাদের নিয়ে বাজে অঙ্গভঙ্গি করেন এবং হাসতে থাকেন। তখন আমরা বান্ধবীরা মিলে তাঁর দিকে তেড়ে যাই এবং জানতে চাই তিনি কেন হাসছেন? এ সময় তাঁর সঙ্গে আমাদের ধস্তাধ্বস্তি হয়।’

অভিযোগপত্রে ওই ছাত্রকে আজীবন বহিষ্কারসহ কঠিন শাস্তির দাবি করেন ওই শিক্ষার্থী।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ওই ছাত্র অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমি ওই মেয়েকে কোনো ধরনের যৌন হয়রানি করিনি। সে যেসব অভিযোগ করেছে তা ভিত্তিহীন। বরং সে-ই আমাকে পছন্দ করত, কিন্তু আমি সাড়া না দেইনি। বর্তমানে আমি নতুন একটি সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ায় সে আমার প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে এ অভিযোগ করেছে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম বলেন, ‘এখনো কোনো অভিযোগ হাতে পাইনি। তবে বিষয়টি সত্য হলে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» বনপা’র উদ্যোগে ‘মহাকাশে বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা, ইফতার ও কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

» যে ১০ তারকা উড়োজাহাজও চালাতেপারেন

» এখনও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাননি তারা

» শপিংমলেই মিলবে গার্লফ্রেন্ড!

» বলিউড তারকাদের তারকা মায়েরা

» ঈদের পর প্রথম শ্বশুরবাড়ি যাবেন মৌসুমী

» আনুশকাকে কখনও মেনে নেবে না প্রভাসের পরিবার

» বাংলাদেশিদের ‘পাগলামি’ দেখে ব্রাজিলিয়ানদের হাসাহাসি!

» ফুলের হাতে যেন হাতকড়া না লাগে!

» মাহবুবুল এ খালিদের বিশ্বকাপের নতুন গানে সম্প্রীতির বার্তা (ভিডিও)

» আসিফের হৃদয় ছুঁয়েছেন কর্ণিয়া !

» স্ত্রীকে মারতে স্বামীর ভয়ঙ্কর কৌশল

» গোপনে কোথায় হানিমুনে যাচ্ছেন রাজ-শুভশ্রী?

» বিচিত্র টুপির রহস্য রাজকীয় বিয়েতে

» ঘরোয়া ৩ সহজ উপায় “পুরুষ মহিলা সবার জন্য

সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463,09602333111,01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।

সন্ধ্যা ৭:৪৮, ,

রিহার্সেলের কথা বলে ছাত্রীকে যৌন হয়রানি!

যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের ৪৫তম ব্যাচের এক ছাত্রী। যার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ আনা হয়েছে, তিনিও একই বিভাগের ৪৩তম ব্যাচের ছাত্র এবং আল বেরুণী হলের বাসিন্দা।

আজ বৃহস্পতিবার ওই ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ছাত্র।

উপাচার্যের সচিব আমজাদ হোসেন রাতে এনটিভি অনলাইনকে জানান, ‘এক ছাত্রী যৌন হয়রানির একটি অভিযোগ দিয়েছেন। কিন্তু অফিস সময় শেষ হয়ে যাওয়ায় সেটি উপাচার্যের কাছে হস্তান্তর করা হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরবর্তী কার্যদিবসে এটি উপাচার্যের কাছে হস্তান্তর করা হবে।’

এ ব্যাপারে নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক এ কে এম ইউসুফ হাসান বলেন, ‘বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত হয়েছি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক তপন কুমার সাহা বলেন, ‘শিক্ষার্থী অভিযোগ নিয়ে এসেছিল। তবে যৌন নিপীড়নের বিষয় হওয়ায় যৌন নিপীড়ন সেল ও উপাচার্যের কাছে অভিযোগ দিতে বলেছি।’

অভিযোগপত্রে ওই ছাত্রী উল্লেখ করেন, ‘গত বছরের ১৫ জুলাই রিহার্সেলের কথা বলে ওই ছাত্র আমাকে জহির রায়হান মিলনায়তনের ল্যাব কক্ষে ডেকে নিয়ে যান এবং প্রপস (নাটকের সাজ সরঞ্জাম) গোছানো ও ল্যাব পরিষ্কারের কথা বলেন। আমি গোছানোর কাজ শুরু করার কিছু সময় পরে তিনি ল্যাবের কক্ষের দরজা বন্ধ করে দেন এবং আমার ওপর যৌন নিপীড়ন করেন। এ সময় তিনি আমার হাত মুচড়ে দেন এবং শাসিয়ে আর কারো সঙ্গে এই ঘটনা আলোচনা না করতে বলেন।’

‘একপর্যায়ে আমি তাঁকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে ল্যাব থেকে বের হয়ে বাসায় চলে যাই। এরপর তিনি অনেকবার আমাকে মানসিকভাবে হেনস্তা করেন এবং ভয় দেখান। ভয়ে আমি কাউকে কিছু বলিনি। এ কারণে আমি দীর্ঘদিন বিভাগে আসা বন্ধ রাখি। এ সময়ে তিনি আমার নামে বিভাগের বন্ধুদের কাছে কুৎসা রটাতে থাকেন।’

অভিযোগে আরো বলা হয়, ‘ওই ঘটনার পর গত বছরের ১৪ নভেম্বর আবার তিনি আমাকে ফোন দিয়ে হলের সামনে আসতে বলেন। আমি তাঁর সঙ্গে দেখা করব না বললে তিনি আমাকে হুমকি দেন। ভয়ে আমি হলের সামনে গেলে ওই সময় বিদ্যুৎ চলে যায়। এ সুযোগে তিনি আমাকে টানতে টানতে বৃন্দাবনের দিকে নিয়ে যান এবং আমার সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু করেন।’

সর্বশেষ গত ১২ মার্চ জাবির টিএসসিতে রিহার্সেল চলার সময়েও ওই ছাত্র অশালীন কথা বলেন বলে অভিযোগ করেন ছাত্রী। তিনি বলেন, ‘টিএসসির ঘটনার পর আমি বিষয়গুলো বিভাগের বন্ধুদের ও বড় ভাই-আপুদের জানাই। তাঁরা বিষয়টির সমাধানের জন্য গত ১৫ মার্চ বিভাগের সব ব্যাচ মিলে বসেন। ঘটনাস্থলে বসেও ওই ছাত্র আমাদের নিয়ে বাজে অঙ্গভঙ্গি করেন এবং হাসতে থাকেন। তখন আমরা বান্ধবীরা মিলে তাঁর দিকে তেড়ে যাই এবং জানতে চাই তিনি কেন হাসছেন? এ সময় তাঁর সঙ্গে আমাদের ধস্তাধ্বস্তি হয়।’

অভিযোগপত্রে ওই ছাত্রকে আজীবন বহিষ্কারসহ কঠিন শাস্তির দাবি করেন ওই শিক্ষার্থী।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ওই ছাত্র অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমি ওই মেয়েকে কোনো ধরনের যৌন হয়রানি করিনি। সে যেসব অভিযোগ করেছে তা ভিত্তিহীন। বরং সে-ই আমাকে পছন্দ করত, কিন্তু আমি সাড়া না দেইনি। বর্তমানে আমি নতুন একটি সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ায় সে আমার প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে এ অভিযোগ করেছে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম বলেন, ‘এখনো কোনো অভিযোগ হাতে পাইনি। তবে বিষয়টি সত্য হলে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Comments

comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463,09602333111,01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।