সকাল ১০:১২ | শনিবার | ১৮ই নভেম্বর, ২০১৭ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

দাম পরিশোধ করবে ‘স্মার্ট রিং’!

স্মার্টফোনের নাম তো জানেন, সেটা দিয়ে এখন এমন কোনো কাজ নেই যা করা যায় না। এবার আপনার আঙুলে রাখার জন্য তৈরি হয়েছে ‘স্মার্ট রিং’, যা দিয়ে পণ্য কিনে দাম পরিশোধ করতে পারবেন আপনি। ম্যাশেবেলে প্রকাশিত খবরে জানা গেল, আংটির নাম রাখা হয়েছে ‘কার্ভ’, যা এরই মধ্যে ছাড়া হয়েছে যুক্তরাজ্যের বাজারে। এই আংটি পরে থাকলে পণ্য কেনার ক্ষেত্রে আপনাকে আর আলাদা করে কাগজ বা ধাতব মুদ্রা বহন করতে হবে না।

তবে এটাই প্রথম ক্রয়ক্ষমতাসম্পন্ন স্মার্ট ডিভাইস নয়। কয়েক বছর ধরে অ্যাপল ফোন ব্যবহারকারীরা ‘অ্যাপল পে’র মাধ্যমে এই সুবিধা ভোগ করে আসছেন। আংটির এই প্রযুক্তি যে ব্যবহারকারীদের নতুন অভিজ্ঞতা দেবে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। এর কারণ, এই আংটি স্মার্টফোনের সংযোগ ছাড়াই কাজ করবে। ফলে এর ব্যবহারকারীরা নিয়ার ফিল্ড কমিউনিকেশন (এনএফসি) বা নিকটবর্তী এলাকাভিত্তিক যোগাযোগে বাধাহীন প্রযুক্তি ব্যবহারের সুবিধা পাবেন।

অর্থ আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে কার্ভ কাজ করবে মাস্টারকার্ড নেটওয়ার্কের অধীনে। ব্যবহারকারীদের অবশ্যই কার্ভ ভার্চুয়াল মাস্টারকার্ড অ্যাকাউন্টে নিবন্ধিত হতে হবে। একবার এই আংটির সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে গেলে এটি বিশ্বের যেকোনো জায়গায়, যেখানেই যোগাযোগবিহীন অর্থ আদান-প্রদানের ব্যবস্থা রয়েছে, সেখানে কাজ করবে।

কার্ভের নির্মাতারা দাবি করছেন, এই ‘অলংকার’টি বিশ্বের প্রথম ক্রয়ক্ষমতাসম্পন্ন ‘স্মার্ট আংটি’। কিন্তু এটিও প্রতিযোগিতার মুখে পড়ছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক আরেকটি ‘স্মার্ট আংটি’ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এনএফসি রিংয়ের। যারা নিজেরাও অর্থ আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে এনএফসি প্রযুক্তির ব্যবহার করে। এনএফসি রিংস প্রতিষ্ঠানটির দাবি, কার্ভ তাদের তৈরি মেধা, নিজেদের আংটির নকশায় ব্যবহার করেছে। তবে এ দাবি নাকচ করে দিয়েছে কার্ভ।

এনএফসি রিংসের পেছনে যে দলটি কাজ করেছে, তারা আগেও এ ধরনের প্রযুক্তি প্রকাশ করেছিল, যখন তাদের সঙ্গে অর্থনৈতিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ভিসার অংশীদারত্ব ছিল। এই প্রতিষ্ঠান প্রযুক্তি দুনিয়ায় আত্মপ্রকাশ করে ২০১৫ সালে। পরে তাদের তৈরি আংটিটি ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকে ব্যবহার করেন অলিম্পিক ভিলেজে থাকা সেরা ক্রীড়াবিদরা। ইউরোপের দেশগুলো থেকে এই এনএফসি আংটি কেনা যায়। পর্যায়ক্রমে বিশ্বের বিভিন্ন বাজারে ছাড়া হবে এই আংটি। তবে এর প্রযুক্তি কার্ভের থেকে আলাদা। এনএফসি আংটি কাজ করার জন্য একটি অ্যানড্রয়েড ডিভাইসের সঙ্গে সংযুক্ত হতে হয়, কার্ভে সেটির প্রয়োজন পড়ে না।

কার্ভের প্রতিষ্ঠাতা ফিলিপ ক্যাম্পবেল স্বীকার করেন, এ দুই আংটি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ই-মেইল চালাচালি হয়েছে। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে এটি নিয়ে আইনি লড়াই চলছে, সেখানে কার্ভের উপস্থিতি নেই, আর এর সঙ্গে জড়ানোর পরিকল্পনাও নেই।

ক্যাম্পবেল আত্মবিশ্বাসী যে, এই বিতর্ক কার্ভের সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারবে না। তাই আপনি যদি ভবিষ্যতে এমন স্মার্ট অলংকার পরতে চান, তাহলে কার্ভের ওপর চোখ রাখতেই পারেন।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» বেরসিক পাঠক ও সিঙ্গাড়ার গল্প

» উৎস নাট্যদলের উপদেষ্টা হলেন ডাঃ সুকুমার কুন্ডু

» উৎস নাট্যদলের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য হলেন পরিচালক ইরানী বিশ্বাস

» উৎস নাট্যদলের উপদেষ্টামন্ডলির সদস্য হলেন এস পি এস এম জাহাঙ্গীর আলম সরকার

» ফুলবাড়িয়ায় ৫ ফার্মেসিকে জরিমানা

» ময়মনসিংহে অনুমোদনবিহীন গবাদি পশুর ঔষধ তৈরির দায়ে ২ কারখানার জরিমানা

» পরীক্ষায় নকল সরবরাহের দায়ে দপ্তরির কারাদণ্ড

» গোপালগঞ্জে ‘ব্লু-হোয়েল’ গেম খেলে ‘আত্মঘাতী’ স্কুলছাত্র

» আলফাডাঙ্গায় যথাযোগ্য মর্যাদায় জেল হত্যা দিবস পালিত

» মাইজদীতে মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষধ রাখার জন্য মোবাইল কোর্ট এর জরিমানা

» আলফাডাঙ্গায় জাতীয় যুব দিবস পালন

» নোয়াখালীর কোম্পানীগন্জে লাইসেন্সবিহীন ফার্মেসী বন্ধ ও লক্ষাধিক টাকার ফুড সাপ্লিমেন্ট কৌটা জব্দ

» বহুল প্রচলিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল “বার্তাকন্ঠ.কম” এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে প্রতিনিধি / সংবাদকর্মী/সংবাদদাতা নিয়োগ

» বোয়ালমারী ও আলফাডাঙ্গায় কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি দোলনের গণসংযোগ

» অবৈধ ঔষধ কারখানায় অভিযানে ছয় (০৬) জনের জেল, নোয়াখালীতে Made in USA ঔষধ তৈরি হচ্ছে।

সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুজাহিদুল ইসলাম নাইম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : ২৩/৩, তোপখানা রোড,
৪র্থ তালা (পাক্ষিক অনিয়ম এর পাশে ঢাকা - ১০০০
কর্পোরেট অফিস : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463, 01911717599, 01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।

সকাল ১০:১২, ,

দাম পরিশোধ করবে ‘স্মার্ট রিং’!

স্মার্টফোনের নাম তো জানেন, সেটা দিয়ে এখন এমন কোনো কাজ নেই যা করা যায় না। এবার আপনার আঙুলে রাখার জন্য তৈরি হয়েছে ‘স্মার্ট রিং’, যা দিয়ে পণ্য কিনে দাম পরিশোধ করতে পারবেন আপনি। ম্যাশেবেলে প্রকাশিত খবরে জানা গেল, আংটির নাম রাখা হয়েছে ‘কার্ভ’, যা এরই মধ্যে ছাড়া হয়েছে যুক্তরাজ্যের বাজারে। এই আংটি পরে থাকলে পণ্য কেনার ক্ষেত্রে আপনাকে আর আলাদা করে কাগজ বা ধাতব মুদ্রা বহন করতে হবে না।

তবে এটাই প্রথম ক্রয়ক্ষমতাসম্পন্ন স্মার্ট ডিভাইস নয়। কয়েক বছর ধরে অ্যাপল ফোন ব্যবহারকারীরা ‘অ্যাপল পে’র মাধ্যমে এই সুবিধা ভোগ করে আসছেন। আংটির এই প্রযুক্তি যে ব্যবহারকারীদের নতুন অভিজ্ঞতা দেবে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। এর কারণ, এই আংটি স্মার্টফোনের সংযোগ ছাড়াই কাজ করবে। ফলে এর ব্যবহারকারীরা নিয়ার ফিল্ড কমিউনিকেশন (এনএফসি) বা নিকটবর্তী এলাকাভিত্তিক যোগাযোগে বাধাহীন প্রযুক্তি ব্যবহারের সুবিধা পাবেন।

অর্থ আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে কার্ভ কাজ করবে মাস্টারকার্ড নেটওয়ার্কের অধীনে। ব্যবহারকারীদের অবশ্যই কার্ভ ভার্চুয়াল মাস্টারকার্ড অ্যাকাউন্টে নিবন্ধিত হতে হবে। একবার এই আংটির সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে গেলে এটি বিশ্বের যেকোনো জায়গায়, যেখানেই যোগাযোগবিহীন অর্থ আদান-প্রদানের ব্যবস্থা রয়েছে, সেখানে কাজ করবে।

কার্ভের নির্মাতারা দাবি করছেন, এই ‘অলংকার’টি বিশ্বের প্রথম ক্রয়ক্ষমতাসম্পন্ন ‘স্মার্ট আংটি’। কিন্তু এটিও প্রতিযোগিতার মুখে পড়ছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক আরেকটি ‘স্মার্ট আংটি’ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এনএফসি রিংয়ের। যারা নিজেরাও অর্থ আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে এনএফসি প্রযুক্তির ব্যবহার করে। এনএফসি রিংস প্রতিষ্ঠানটির দাবি, কার্ভ তাদের তৈরি মেধা, নিজেদের আংটির নকশায় ব্যবহার করেছে। তবে এ দাবি নাকচ করে দিয়েছে কার্ভ।

এনএফসি রিংসের পেছনে যে দলটি কাজ করেছে, তারা আগেও এ ধরনের প্রযুক্তি প্রকাশ করেছিল, যখন তাদের সঙ্গে অর্থনৈতিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ভিসার অংশীদারত্ব ছিল। এই প্রতিষ্ঠান প্রযুক্তি দুনিয়ায় আত্মপ্রকাশ করে ২০১৫ সালে। পরে তাদের তৈরি আংটিটি ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকে ব্যবহার করেন অলিম্পিক ভিলেজে থাকা সেরা ক্রীড়াবিদরা। ইউরোপের দেশগুলো থেকে এই এনএফসি আংটি কেনা যায়। পর্যায়ক্রমে বিশ্বের বিভিন্ন বাজারে ছাড়া হবে এই আংটি। তবে এর প্রযুক্তি কার্ভের থেকে আলাদা। এনএফসি আংটি কাজ করার জন্য একটি অ্যানড্রয়েড ডিভাইসের সঙ্গে সংযুক্ত হতে হয়, কার্ভে সেটির প্রয়োজন পড়ে না।

কার্ভের প্রতিষ্ঠাতা ফিলিপ ক্যাম্পবেল স্বীকার করেন, এ দুই আংটি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ই-মেইল চালাচালি হয়েছে। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে এটি নিয়ে আইনি লড়াই চলছে, সেখানে কার্ভের উপস্থিতি নেই, আর এর সঙ্গে জড়ানোর পরিকল্পনাও নেই।

ক্যাম্পবেল আত্মবিশ্বাসী যে, এই বিতর্ক কার্ভের সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারবে না। তাই আপনি যদি ভবিষ্যতে এমন স্মার্ট অলংকার পরতে চান, তাহলে কার্ভের ওপর চোখ রাখতেই পারেন।

Comments

comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুজাহিদুল ইসলাম নাইম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : ২৩/৩, তোপখানা রোড,
৪র্থ তালা (পাক্ষিক অনিয়ম এর পাশে ঢাকা - ১০০০
কর্পোরেট অফিস : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463, 01911717599, 01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।