সকাল ১০:১৯ | শনিবার | ১৮ই নভেম্বর, ২০১৭ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

ট্রাম্পের নতুন নিষেধাজ্ঞাও স্থগিত করলেন আদালত

ক্ষমতায় বসেই নির্বাহী আদেশবলে সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র সফরের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেশগুলো হলো—ইরাক, ইরান, সিরিয়া, ইয়েমেন, সুদান, লিবিয়া ও সোমলিয়া। এ নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে সারা বিশ্বে সমালোচনার ঝড় ওঠে। নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবিতে দেশটির বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের পথে পথে বিক্ষোভ দেখায় জনতা। যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগও এ সিদ্ধান্তকে ‘অযৌক্তিক’ আখ্যা দিয়ে ওই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় স্থগিতাদেশ দেয়।

ওই স্থগিতাদেশের পরও হার মানেননি ট্রাম্প। তাঁর প্রশাসন ইরাককে বাদ দিয়ে বাকি ছয়টি দেশের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দেয়। নতুন ওই আদেশবলেও সাময়িকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের শরণার্থী কর্মসূচি বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করা হয়। এ ছাড়া ১২০ দিনের জন্য শরণার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকা নিষিদ্ধ করা হয়।

সংশোধিত ওই নিষেধাজ্ঞা কার্যকরের কথা ছিল যুক্তরাষ্ট্র সময় বৃহস্পতিবার ভোর থেকে। কিন্তু বিতর্কিত ওই আদেশ কার্যকরের মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে হাওয়াই অঙ্গরাজ্যের ডিস্ট্রিক্ট আদালতের বিচারক ডেরিক ওয়াটসন ট্রাম্পের এই নির্বাহী আদেশের ওপর স্থগিতাদেশ দেন।

বিচারক ডেরিক ওয়াটসন এই নিষেধাজ্ঞার পক্ষে ‘প্রশ্নবিদ্ধ যুক্তি’ দাঁড় করানোর অভিযোগ করেন। অন্যদিকে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের সময় রাষ্ট্রপক্ষ জাতীয় নিরাপত্তার কথা জোর দিয়ে বলে।

এদিকে স্থগিত আদেশের পর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প একে ‘নজিরবিহীন বিচারিক কর্মকাণ্ড’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। হাওয়াই অঙ্গরাজ্যে এ রায়ের কিছুক্ষণের মধ্যে এক টুইট বার্তায় তিনি এই মন্তব্য করেন।

মার্কিন বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের (এপি) বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, প্রথম দফার নির্বাহী আদেশের বিরুদ্ধেও মামলা করেছিল ওই রাজ্য। পরে সিয়াটলের একজন বিচারক ট্রাম্পের ওই নির্বাহী আদেশ স্থগিতের আদেশ দেন। ট্রাম্প প্রশাসন ওই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করলেও সানফ্রান্সিসকোর আদালতের তিন বিচারকের প্যানেল তা খারিজ করেন।

আর দ্বিতীয় নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে হাওয়াই রাজ্যের মামলায় বলা হয়েছে, এই নির্বাহী আদেশের ফলে হাওয়াইয়ের মুসলিম জনগোষ্ঠী, পর্যটন আর বিদেশি ছাত্ররা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

হাওয়াইয়ের অ্যাটর্নি জেনারেল ডাউগ চিন বলেন, ‘এই রাজ্যের বিশেষত্ব হলো যে ইতিহাস এবং সাংবিধানিকভাবে এখানে কোনো বৈষম্য করা হয় না। এখানে ২০ শতাংশ বাসিন্দা বিদেশে জন্ম নেওয়া। এক লাখ প্রবাসী বাস করে আর অন্তত ২০ শতাংশ কর্মী বিদেশি নাগরিক।’

চিন আরো বলেন, ‘হাওয়াইয়ের মানুষ মনে করে, নতুন মানুষদের প্রতি ভীতি একটি খারাপ নীতি।’ তবে এ মামলার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি মার্কিন জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রশাসনের যুক্তি হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রকে সন্ত্রাসবাদের হাত থেকে নিরাপদ রাখতে এই নিষেধাজ্ঞা দরকার।

মার্কিন হোমল্যান্ড সিকিউরিটি মন্ত্রী জন কেলি জানিয়েছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প দায়িত্ব গ্রহণের পর যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ অভিবাসীদের প্রবেশের হার অন্তত ৪০ শতাংশ কমেছে।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» বেরসিক পাঠক ও সিঙ্গাড়ার গল্প

» উৎস নাট্যদলের উপদেষ্টা হলেন ডাঃ সুকুমার কুন্ডু

» উৎস নাট্যদলের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য হলেন পরিচালক ইরানী বিশ্বাস

» উৎস নাট্যদলের উপদেষ্টামন্ডলির সদস্য হলেন এস পি এস এম জাহাঙ্গীর আলম সরকার

» ফুলবাড়িয়ায় ৫ ফার্মেসিকে জরিমানা

» ময়মনসিংহে অনুমোদনবিহীন গবাদি পশুর ঔষধ তৈরির দায়ে ২ কারখানার জরিমানা

» পরীক্ষায় নকল সরবরাহের দায়ে দপ্তরির কারাদণ্ড

» গোপালগঞ্জে ‘ব্লু-হোয়েল’ গেম খেলে ‘আত্মঘাতী’ স্কুলছাত্র

» আলফাডাঙ্গায় যথাযোগ্য মর্যাদায় জেল হত্যা দিবস পালিত

» মাইজদীতে মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষধ রাখার জন্য মোবাইল কোর্ট এর জরিমানা

» আলফাডাঙ্গায় জাতীয় যুব দিবস পালন

» নোয়াখালীর কোম্পানীগন্জে লাইসেন্সবিহীন ফার্মেসী বন্ধ ও লক্ষাধিক টাকার ফুড সাপ্লিমেন্ট কৌটা জব্দ

» বহুল প্রচলিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল “বার্তাকন্ঠ.কম” এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে প্রতিনিধি / সংবাদকর্মী/সংবাদদাতা নিয়োগ

» বোয়ালমারী ও আলফাডাঙ্গায় কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি দোলনের গণসংযোগ

» অবৈধ ঔষধ কারখানায় অভিযানে ছয় (০৬) জনের জেল, নোয়াখালীতে Made in USA ঔষধ তৈরি হচ্ছে।

সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুজাহিদুল ইসলাম নাইম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : ২৩/৩, তোপখানা রোড,
৪র্থ তালা (পাক্ষিক অনিয়ম এর পাশে ঢাকা - ১০০০
কর্পোরেট অফিস : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463, 01911717599, 01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।

সকাল ১০:১৯, ,

ট্রাম্পের নতুন নিষেধাজ্ঞাও স্থগিত করলেন আদালত

ক্ষমতায় বসেই নির্বাহী আদেশবলে সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র সফরের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিলেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেশগুলো হলো—ইরাক, ইরান, সিরিয়া, ইয়েমেন, সুদান, লিবিয়া ও সোমলিয়া। এ নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে সারা বিশ্বে সমালোচনার ঝড় ওঠে। নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবিতে দেশটির বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের পথে পথে বিক্ষোভ দেখায় জনতা। যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগও এ সিদ্ধান্তকে ‘অযৌক্তিক’ আখ্যা দিয়ে ওই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় স্থগিতাদেশ দেয়।

ওই স্থগিতাদেশের পরও হার মানেননি ট্রাম্প। তাঁর প্রশাসন ইরাককে বাদ দিয়ে বাকি ছয়টি দেশের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দেয়। নতুন ওই আদেশবলেও সাময়িকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের শরণার্থী কর্মসূচি বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করা হয়। এ ছাড়া ১২০ দিনের জন্য শরণার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকা নিষিদ্ধ করা হয়।

সংশোধিত ওই নিষেধাজ্ঞা কার্যকরের কথা ছিল যুক্তরাষ্ট্র সময় বৃহস্পতিবার ভোর থেকে। কিন্তু বিতর্কিত ওই আদেশ কার্যকরের মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে হাওয়াই অঙ্গরাজ্যের ডিস্ট্রিক্ট আদালতের বিচারক ডেরিক ওয়াটসন ট্রাম্পের এই নির্বাহী আদেশের ওপর স্থগিতাদেশ দেন।

বিচারক ডেরিক ওয়াটসন এই নিষেধাজ্ঞার পক্ষে ‘প্রশ্নবিদ্ধ যুক্তি’ দাঁড় করানোর অভিযোগ করেন। অন্যদিকে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের সময় রাষ্ট্রপক্ষ জাতীয় নিরাপত্তার কথা জোর দিয়ে বলে।

এদিকে স্থগিত আদেশের পর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প একে ‘নজিরবিহীন বিচারিক কর্মকাণ্ড’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। হাওয়াই অঙ্গরাজ্যে এ রায়ের কিছুক্ষণের মধ্যে এক টুইট বার্তায় তিনি এই মন্তব্য করেন।

মার্কিন বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের (এপি) বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, প্রথম দফার নির্বাহী আদেশের বিরুদ্ধেও মামলা করেছিল ওই রাজ্য। পরে সিয়াটলের একজন বিচারক ট্রাম্পের ওই নির্বাহী আদেশ স্থগিতের আদেশ দেন। ট্রাম্প প্রশাসন ওই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করলেও সানফ্রান্সিসকোর আদালতের তিন বিচারকের প্যানেল তা খারিজ করেন।

আর দ্বিতীয় নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে হাওয়াই রাজ্যের মামলায় বলা হয়েছে, এই নির্বাহী আদেশের ফলে হাওয়াইয়ের মুসলিম জনগোষ্ঠী, পর্যটন আর বিদেশি ছাত্ররা ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

হাওয়াইয়ের অ্যাটর্নি জেনারেল ডাউগ চিন বলেন, ‘এই রাজ্যের বিশেষত্ব হলো যে ইতিহাস এবং সাংবিধানিকভাবে এখানে কোনো বৈষম্য করা হয় না। এখানে ২০ শতাংশ বাসিন্দা বিদেশে জন্ম নেওয়া। এক লাখ প্রবাসী বাস করে আর অন্তত ২০ শতাংশ কর্মী বিদেশি নাগরিক।’

চিন আরো বলেন, ‘হাওয়াইয়ের মানুষ মনে করে, নতুন মানুষদের প্রতি ভীতি একটি খারাপ নীতি।’ তবে এ মামলার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি মার্কিন জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রশাসনের যুক্তি হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রকে সন্ত্রাসবাদের হাত থেকে নিরাপদ রাখতে এই নিষেধাজ্ঞা দরকার।

মার্কিন হোমল্যান্ড সিকিউরিটি মন্ত্রী জন কেলি জানিয়েছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প দায়িত্ব গ্রহণের পর যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ অভিবাসীদের প্রবেশের হার অন্তত ৪০ শতাংশ কমেছে।

Comments

comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুজাহিদুল ইসলাম নাইম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : ২৩/৩, তোপখানা রোড,
৪র্থ তালা (পাক্ষিক অনিয়ম এর পাশে ঢাকা - ১০০০
কর্পোরেট অফিস : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463, 01911717599, 01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।