সকাল ১০:১৩ | শনিবার | ১৮ই নভেম্বর, ২০১৭ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

সীমান্তে যুবক নিহত, নেপালে বিক্ষোভ, ভারতের দুঃখপ্রকাশ

হাজারো মানুষের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধায় বিদায় নিয়েছেন ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর গুলিতে নিহত নেপালি যুবক গোবিন্দ গৌতম (২৯)। আজ রোববার রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁর শেষকৃত্যানুষ্ঠান হয়েছে।

গুলির ঘটনায় নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দহলের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ করেছেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। নিহত হওয়ার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার ভারতীয় বাহিনী সশস্ত্র সীমা বলের (এসএসবি) গুলিতে নিহত হন গৌতম। আজ ভারত-নেপাল সীমান্তবর্তী এলাকা নেপালের কাঞ্চনপুরের দোবা নদীর তীরে গৌতমের শেষকৃত্যের আয়োজন করা হয়। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গৌতমকে কেবল বিদায় নয়, তাঁকে ‘শহিদ’ উপাধি দিয়েছে নেপাল সরকার।

দ্য হিমালয়ান টাইমস জানিয়েছে, গৌতমের বাবা ক্ষেমলাল গৌতম (৭২) নিজ ছেলের মুখাগ্নি করেন। এ সময় গৌতমের স্মরণে ১১ বার আকাশে গুলি করে নেপালি পুলিশ।

যা ঘটেছিল গৌতমের ভাগ্যে
ভারতীয় সীমান্ত এলাকা কাঞ্চননগর জেলায় ঘটনাটি ঘটে। জেলার পুনার্ভার কারগিলডান্ডা এলাকাটি একেবারেই সীমান্তে। সেখানে কালভার্ট নির্মাণের আয়োজন করে ভারত। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, ‘নো ম্যানস ল্যান্ডে’ কালভার্ট নির্মাণের তোড়জোড় করছে ভারত। কাঞ্চননগর জেলা কর্মকর্তা মনোহর প্রসাব খানাল জানান, এরই প্রতিবাদে স্থানীয় বাসিন্দারা সীমান্ত এলাকায় জড়ো হয় এবং প্রতিবাদ করে।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ভারতের বাহিনী সশস্ত্র সীমা বল (এসএসবি) নেপালের ৮০০ মিটার এলাকার ভেতরে প্রবেশ করে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, তখনই গুলি করে এসএসবি আর এতে গুলিবিদ্ধ হন যুবক গৌতম। আশঙ্কাজনক অবস্থায় গৌতমকে কৈলালি জেলার সেতি জোনাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তিনি মারা যান।

এ ঘটনার পরই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে নেপালের বিভিন্ন এলাকা। রাজধানী কাঠমান্ডুসহ বিভিন্ন এলাকায় মানুষ এ হত্যা প্রতিবাদ জানায়। কাঠমান্ডুতে ভারতীয় হাইকমিশনের সামনে প্রতিবাদ করে তারা।

ভারতের অস্বীকার ও পরে তদন্তের সিদ্ধান্ত
ঘটনার পরই এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করে ভারত। ভারতের দাবি, এসএসবির গুলিতে কোনো হত্যার ঘটনা ঘটেনি। কাঠমান্ডুতে ভারতীয় হাইকমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, গুলিবর্ষণের কোনো ঘটনার সঙ্গে এসএসবি জড়িত নয়।

ঘটনার পরদিন ভারত জানায়, ওই ব্যাপারে এসএসবিও তদন্ত শুরু করেছে। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গোপাল বাগলে জানান, নিহতের ময়নাতদন্ত ও ফরেনসিক প্রতিবেদন চাওয়া হয়েছে নেপালের কাছে।

এ বিষয়ে নেপাল সরকারকে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ করেছেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। তিনি বিষয়টি নিয়ে নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দহলের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ করেন। নিহত হওয়ার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন দোভাল। নিহতের পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেন এবং ওই বিষয়ে তদন্তের জন্য নেপাল সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন দোভাল।

Comments

comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» বেরসিক পাঠক ও সিঙ্গাড়ার গল্প

» উৎস নাট্যদলের উপদেষ্টা হলেন ডাঃ সুকুমার কুন্ডু

» উৎস নাট্যদলের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য হলেন পরিচালক ইরানী বিশ্বাস

» উৎস নাট্যদলের উপদেষ্টামন্ডলির সদস্য হলেন এস পি এস এম জাহাঙ্গীর আলম সরকার

» ফুলবাড়িয়ায় ৫ ফার্মেসিকে জরিমানা

» ময়মনসিংহে অনুমোদনবিহীন গবাদি পশুর ঔষধ তৈরির দায়ে ২ কারখানার জরিমানা

» পরীক্ষায় নকল সরবরাহের দায়ে দপ্তরির কারাদণ্ড

» গোপালগঞ্জে ‘ব্লু-হোয়েল’ গেম খেলে ‘আত্মঘাতী’ স্কুলছাত্র

» আলফাডাঙ্গায় যথাযোগ্য মর্যাদায় জেল হত্যা দিবস পালিত

» মাইজদীতে মেয়াদ উত্তীর্ন ঔষধ রাখার জন্য মোবাইল কোর্ট এর জরিমানা

» আলফাডাঙ্গায় জাতীয় যুব দিবস পালন

» নোয়াখালীর কোম্পানীগন্জে লাইসেন্সবিহীন ফার্মেসী বন্ধ ও লক্ষাধিক টাকার ফুড সাপ্লিমেন্ট কৌটা জব্দ

» বহুল প্রচলিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল “বার্তাকন্ঠ.কম” এর জন্য জরুরী ভিত্তিতে প্রতিনিধি / সংবাদকর্মী/সংবাদদাতা নিয়োগ

» বোয়ালমারী ও আলফাডাঙ্গায় কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি দোলনের গণসংযোগ

» অবৈধ ঔষধ কারখানায় অভিযানে ছয় (০৬) জনের জেল, নোয়াখালীতে Made in USA ঔষধ তৈরি হচ্ছে।

সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুজাহিদুল ইসলাম নাইম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : ২৩/৩, তোপখানা রোড,
৪র্থ তালা (পাক্ষিক অনিয়ম এর পাশে ঢাকা - ১০০০
কর্পোরেট অফিস : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463, 01911717599, 01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।

সকাল ১০:১৩, ,

সীমান্তে যুবক নিহত, নেপালে বিক্ষোভ, ভারতের দুঃখপ্রকাশ

হাজারো মানুষের ভালোবাসা ও শ্রদ্ধায় বিদায় নিয়েছেন ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর গুলিতে নিহত নেপালি যুবক গোবিন্দ গৌতম (২৯)। আজ রোববার রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁর শেষকৃত্যানুষ্ঠান হয়েছে।

গুলির ঘটনায় নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দহলের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ করেছেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। নিহত হওয়ার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার ভারতীয় বাহিনী সশস্ত্র সীমা বলের (এসএসবি) গুলিতে নিহত হন গৌতম। আজ ভারত-নেপাল সীমান্তবর্তী এলাকা নেপালের কাঞ্চনপুরের দোবা নদীর তীরে গৌতমের শেষকৃত্যের আয়োজন করা হয়। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গৌতমকে কেবল বিদায় নয়, তাঁকে ‘শহিদ’ উপাধি দিয়েছে নেপাল সরকার।

দ্য হিমালয়ান টাইমস জানিয়েছে, গৌতমের বাবা ক্ষেমলাল গৌতম (৭২) নিজ ছেলের মুখাগ্নি করেন। এ সময় গৌতমের স্মরণে ১১ বার আকাশে গুলি করে নেপালি পুলিশ।

যা ঘটেছিল গৌতমের ভাগ্যে
ভারতীয় সীমান্ত এলাকা কাঞ্চননগর জেলায় ঘটনাটি ঘটে। জেলার পুনার্ভার কারগিলডান্ডা এলাকাটি একেবারেই সীমান্তে। সেখানে কালভার্ট নির্মাণের আয়োজন করে ভারত। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, ‘নো ম্যানস ল্যান্ডে’ কালভার্ট নির্মাণের তোড়জোড় করছে ভারত। কাঞ্চননগর জেলা কর্মকর্তা মনোহর প্রসাব খানাল জানান, এরই প্রতিবাদে স্থানীয় বাসিন্দারা সীমান্ত এলাকায় জড়ো হয় এবং প্রতিবাদ করে।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ভারতের বাহিনী সশস্ত্র সীমা বল (এসএসবি) নেপালের ৮০০ মিটার এলাকার ভেতরে প্রবেশ করে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, তখনই গুলি করে এসএসবি আর এতে গুলিবিদ্ধ হন যুবক গৌতম। আশঙ্কাজনক অবস্থায় গৌতমকে কৈলালি জেলার সেতি জোনাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তিনি মারা যান।

এ ঘটনার পরই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে নেপালের বিভিন্ন এলাকা। রাজধানী কাঠমান্ডুসহ বিভিন্ন এলাকায় মানুষ এ হত্যা প্রতিবাদ জানায়। কাঠমান্ডুতে ভারতীয় হাইকমিশনের সামনে প্রতিবাদ করে তারা।

ভারতের অস্বীকার ও পরে তদন্তের সিদ্ধান্ত
ঘটনার পরই এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করে ভারত। ভারতের দাবি, এসএসবির গুলিতে কোনো হত্যার ঘটনা ঘটেনি। কাঠমান্ডুতে ভারতীয় হাইকমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, গুলিবর্ষণের কোনো ঘটনার সঙ্গে এসএসবি জড়িত নয়।

ঘটনার পরদিন ভারত জানায়, ওই ব্যাপারে এসএসবিও তদন্ত শুরু করেছে। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গোপাল বাগলে জানান, নিহতের ময়নাতদন্ত ও ফরেনসিক প্রতিবেদন চাওয়া হয়েছে নেপালের কাছে।

এ বিষয়ে নেপাল সরকারকে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ করেছেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। তিনি বিষয়টি নিয়ে নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দহলের সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ করেন। নিহত হওয়ার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন দোভাল। নিহতের পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেন এবং ওই বিষয়ে তদন্তের জন্য নেপাল সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন দোভাল।

Comments

comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলী : –

উপদেষ্টা : ডা রফিকুল ইসলাম বিজলী
আইন উপদেষ্টা : এ্যড জামাল হোসেন মুন্না
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : মুজাহিদুল ইসলাম নাইম
সম্পাদক ও প্রকাশক : মাহির শাহরিয়ার শিশির
বার্তা সম্পাদক: সৈকত মাহমুদ
নির্বাহী সম্পাদক : মনেম শাহরিয়ার শাওন

যোগাযোগ : –

সম্পাদকীয় কার্যালয় : ২৩/৩, তোপখানা রোড,
৪র্থ তালা (পাক্ষিক অনিয়ম এর পাশে ঢাকা - ১০০০
কর্পোরেট অফিস : সুইট :৩০০৯, লেভেল : ০৩, হাজি
আসরাফ শপিং কমপ্লেক্স, হেমায়েতপুর, সাভার, ঢাকা
09602111463, 01911717599, 01611354077
fb.com/bartakantho | info@bartakantho.com

Design & Devaloped BY The Creation IT BD Limited | সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © বার্তাকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।